,

‘হাতের মুঠোয় বাংলাদেশ’

শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতির সহকারী কমিশনার (ভূমি) রায়হান আহমেদ। ৩০ ব্যাচের এই কর্মকর্তা বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন প্রকৌশলী। তিনি উদ্যোগ গ্রহণ করে বিগত প্রায় ২ বছরের অধিককাল যাবৎ নিজে এবং তার সহধর্মিনী একত্রে শ্রম দিয়ে একটি এপ্লিকেশন বানিয়েছেন। যাতে পুরো বাংলাদেশ হাতের মুঠো থাকবে। অর্থাৎ আপনার স্মার্টফোনের মাধ্যমে সেটা সম্ভব। আপনি গুগুল প্লেস্টোর গিয়ে ‘Government Officials Contact’ লিখে সার্চ দিলে এপ্লিকেশনটি পাওয়া যাবে। এপ্লিকেশনটি অফলাইন ভিত্তিক। কোন ধরনের ইন্টারনেটের সাহায্য ছাড়াই এই এপ্লিকেশনটির সাহায্যে আপনি খুব সহজেই যে কোন অফিসের প্রয়োজনীয় নম্বর সংগ্রহ করতে পারবেন এবং এপ্লিকেশন থেকে ফোন কল দিতে পারবেন। এই এপ্লিকেশনটিতে শুধু সরকারি নম্বর এন্ট্রি করা হয়েছে। যাতে কোন অফিসার বদলি হয়ে গেলেও এপ্লিকেশনের নম্বরটি ঠিক থাকে। এই কারণে অনেক অফিসের ক্ষেত্রে দেখা যাবে সেখানে দাফতরিক মোবাইল নম্বর নেই। এপ্লিকেশনটি রিলিজ হয়েছে এক বছর হলো। এই এক বছরে এপ্লিকেশনটি ডাউনলোড হয়েছে প্রায় ২০ হাজার বার। গত বছর ডিসেম্বরে এর প্রাথমিক ভার্সন উদ্বোধন করা হয়। এতে বাংলাদেশের সকল মন্ত্রণালয়/বিভাগ, অধিদফতর ও মাঠ প্রশাসনের প্রায় সকল দফতরের দাফতরিক প্রধানের ফোন, মোবাইল নম্বর, ইমেইল নম্বর খুব সুন্দরভাবে সংযোজিত করা হয়েছে। মোবাইলের কল অপশনের সাথে সেই নম্বরগুলিকে লিংক করা হয়েছে। প্রায় ২০ হাজার ফোন নম্বর বর্তমানে এন্ট্রি দেয়া হয়েছে। তবে, রায়হান আহমেদ বললেন, এটি সকল সরকারি দফতরের ৭০%, কারণ এখনো কিছু কিছু স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, উপজেলা পর্যায়ের কিছু অফিসের ফোন নম্বর না থাকায় তা ধীরে ধীরে এর আওতায় আনতে হচ্ছে।

একজন সহকারী কমিশনার কেন ভাবতে গেলেন পুরো সরকারের নির্বাহী বিভাগের সকল দফতরের যোগাযোগ নম্বরগুলোকে একটি অ্যাপসের আওতায় আনার এই কঠিন কাজ? কি ছিল তার অনুপ্রেরণা? …সত্যিই অবাক করার মত নয় কি? এই অ্যাপসটি যারা ব্যবহার করেছেন বা দেখেছেন কিংবা দেখবেন, তারা অবশ্যই উপলব্ধি করবেন, এটি কত সহজ, ব্যবহারবান্ধব একটি অ্যাপ্লিকেশন।
তিনি কীভাবে এই শ্রমসাধ্য কাজটি সমাপ্ত করলেন, তার লেখনীতেই সেটা জানুন:
কেমন হত যদি বাংলাদেশের সকল সরকারি অফিসের দাফতরিক ফোন নম্বর, মোবাইল নম্বর (দাফতরিক থাকা সাপেক্ষে), ইমেইল, ফ্যাক্স আপনার মোবাইলে ফোনবুকে সংরক্ষিত থাকতো ?
‘হাতের মুঠোয় পুরো বাংলাদেশ’ এই চিন্তা থেকে আমরা বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের ৩০ ব্যাচের ৯ জন তরুণ কর্মকর্তার উদ্যোগে একটি বেসরকারি কোম্পানির মাধ্যমে “Government Officials Contact” নামে একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল এপ্লিকেশন তৈরি করি।
পেছনের কথা
সবাই ৯-৫টা চাকরি করে আমিও করি। সকাল ৯টায় অফিসে যাই সাধারণ জনগণ আসে, আবেদন করে, সামর্থের মধ্যে দ্রুততার সাথে কাজ করার চেষ্টা করি। এমনটাই তো হবার কথা। দিনশেষে হিসাব করি যা আমার দেবার কথা সেটা ঠিক মত দিতে পেরেছি কিনা? আমি কি আরো বেশি কিছু দিতে পারতাম? নিজের দায়িত্বের বাইরে আর কি দিতে পেরেছি? দিন শেষে হিসাবের খাতায় দেখা যেত দায়িত্বের বাইরে আমার দেবার পরিমাণ প্রায় শুন্য। প্রায়ই চিন্তা করতাম এমন একটা কিছু করা যায় না— যেটা আমার জব ডেস্ক্রিপশনে লেখা নাই, যেই কাজটা করতে আমার বস কখনো আমাকে বাধ্য করবে না।

এমনি এক ভাবনা থেকে ২০১৪ সালের ডিসেম্বর মাসে আমরা বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের ৩০ ব্যাচের কয়েকজন তরুণ কর্মকর্তা পিএটিসির কফি কর্ণারে বসেছিলাম । আমাদের বসার উদ্দেশ্য ছিল দেশের জন্য, জনগণের জন্য একটা নতুন কিছু করা। সরকারকে এবং জনগণকে একটা নতুন কিছু উপহার দেয়া। প্রাথমিকভাবে এই উদ্দেশ্যের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হলো এবং সিদ্ধান্ত হলো পরের দিন আবার বসবো এবং বিভিন্ন উদ্ভাবনী আইডিয়া নিয়ে কথা হবে। পরের দিন ডিনারের পর সবাই বসলাম যার যার আইডিয়া নিয়ে। আলোচনার অনেক উদ্ভাবনী আইডিয়া উঠে আসলো। তবে সবচেয়ে গুরুত্ব পেলো সেই সব আইডিয়া যেগুলো জনগণের সরাসরি কাজে লাগবে। সেখানেই বসে ফিজিবিলিটি এনালাইসিস করা হলো। কিছু কিছু আইডিয়া শুরুতেই বাদ পড়লো। কারণ পর্যাপ্ত অর্থায়নের অভাব। আবার কিছু কিছু আইডিয়া বাদ পড়লো যেগুলোর সাথে সরাসরি নীতিনির্ধারণের বিষয় জড়িত। অনেকের মত আমিও একটা প্রস্তাব রাখি— সেটা হলো সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সকল দাফতরিক নম্বর জনগণের হাতের কাছে পৌঁছে দেয়া। যাতে করে সাধারণ জনগণ ঘরে বসেই পুরো বাংলাদেশের সকল সরকারি অফিসের অফিসারের সাথে যোগাযোগ করতে পারে। প্রবাসী বাংলাদেশীদের অনেক সময় বিভিন্ন সরকারি অফিসের সাথে যোগাযোগের প্রয়োজন হয়, প্রয়োজনীয় তথ্য না থাকায় অনেক সময় তাদেরকে দালালের শরণাপন্ন হতে হয়। আইডিয়াটির ব্রিফিং শুনে সবাই সায় দেয় আইডিয়াটি বাস্তবায়নের পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য।
পরবর্তীতে সবার সম্মতিতে আমি উক্ত অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল এপ্লিকেশনের জন্য একটি স্পেসিফিকেশন তৈরী করে একটি বেসরকারি কোম্পানির সাথে কথা বলি। তারা জানায় উক্ত অ্যাপসটির একটি স্কেলিটন ডেভেলপ করতে ৭৫ হাজার টাকা লাগবে। স্কেলিটন ডেভেলপ করার পর সেখানে আমাদের নিজেদের তথ্য (ফোন, মোবাইল, ইমেইল) এন্ট্রি দিতে হবে। সবাই সায় দিলো কাজ শুরু করার। সিদ্ধান্ত হলো প্রাথমিকভাবে আমরা মাঠ পর্যায়ের অফিসসমূহ এন্ট্রি করবো। তারপর ধীরে ধীরে কেন্দ্রীয় পর্যায়ের অফিস এন্ট্রি করবো।

ট্রেনিং প্রায় শেষের দিকে। এসাইনমেন্ট, বুকরিভিউ, এটাচমেন্ট এবং পরীক্ষার চাপ শুরু হয়ে গেল, স্বাভাবিকভাবে আমাদের আইডিয়া বাস্তবায়নের গতিও কমে গেল। এসবের ফাঁকে ফাঁকে আমি মোবাইল এপ্লিকেশনটির একটি ডিজাইন দাঁড় করালাম এবং পাশাপাশি একটা লোগোও ডিজাইন করলাম। সেই মোতাবেক আমাদের সমান্তরালে এপ্লিকেশনের ডেভেলপমেন্টের কাজ এগিয়ে যেতে লাগলো। পাশাপাশি চলতে থাকলো তথ্য সংগ্রহের কাজ। আমরা ৯ জন জেলা ভাগ করে নিলাম, কে কোন কোন জেলা নিয়ে কাজ করবো। কেউ ৭ টা জেলা, কেউ ৮টা জেলা আবার কেউ ৯টা জেলা করে নিলাম। ট্রেনিং এর ফাঁকে ফাঁকে সকল কমিশনার ও ডিসি অফিসে ফোন দিয়ে জেলার এবং উপজেলার তথ্য সংগ্রহ করার কাজ চলতে থাকলো। অনেক ক্ষেত্রে উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের ফোন দিয়ে উপজেলার তথ্য সংগ্রহ করা হতো।
এপ্লিকেশনের স্কেলিটন ডেভেলপ হতে হতে আমাদের ট্রেনিং শেষ হয়ে গেলো। তথ্য সংগ্রহের কাজ শেষ হতে কয়েক মাস লেগে গেল। মূল এপ্লিকেশনের পাশাপাশি প্রয়োজন হলো একটি এডমিন এপ্লিকেশনের। যার মাধ্যমে নতুন অফিস এন্ট্রি কিংবা এডিট, নম্বর এন্ট্রি কিংবা এডিট এবং অন্যান্য তথ্য হালনাগাদের ব্যবস্থা থাকবে।
এন্ট্রির কার্যক্রমের দায়িত্ব নিলাম আমি। সারাদিন অফিস শেষ করে বাসায় এসে অ্যাপসের কাজে হাত দিতাম। গিন্নী রাগ করার বদলে আমার সাথে অ্যাপসের কাজে সাহায্যই করতো। একজন কাগজ ধরে নম্বর বলতো আরেকজন মোবাইলে এন্ট্রি করতো, এন্ট্রি করতে করতে হাত ব্যথা হয়ে গেলে ডাটা শীট আর মোবাইল হাত বদল করতাম।
এভাবে প্রায় মাস তিনেকের প্রচেষ্টায় মাঠ পর্যায়ের ডাটা এন্ট্রির কাজ সম্পন্ন হলো। তারপর  ২০১৫ সালের ২০ নভেম্বর তৎকালীন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার হেলালুদ্দীন আহমেদ (বর্তমানে ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার) মোবাইল এপ্লিকেশনটি উদ্বোধন করেন। অ্যাপস তৈরীর কাজ শেষ হলেও মূলত এটা ছিল আমাদের শুরু। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এমনকি বিদেশ থেকে প্রবাসী বাংলাদেশীরা তাদের বিভিন্ন মতামত এবং ধন্যবাদ জানাতে লাগলেন। আমাদের দায়িত্ব আরো বহুগুণে বেড়ে গেলো। আমাদের এপ্লিকেশনের পরবর্তী ধাপ কেন্দ্রীয় পর্যায়ের তথ্য সংগ্রহ করতে লেগে গেলাম। ভাগ্যক্রমে পেয়ে গেলাম বাংলাদেশ সরকারের টেলিফোন ডিরেক্টরী। সেই টেলিফোন ডিরেক্টরী ৮০৭ পৃষ্ঠার মোবাইলে এত্ত ডাটা এন্ট্রি করা একার পক্ষে সম্ভব না । কয়েকজন মিলে যেনো একসাথে ডাটা এন্ট্রির কাজ চালানো যায় সেজন্য নিজেই বানিয়ে ফেললাম একটা সফটওয়ার। আমি এবং আমার (রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার অফিসের উন্নয়ন শাখার) অফিসের কয়েকজন স্টাফ মিলে প্রায় ৪ মাসে সকল মন্ত্রণালয় এবং ২২ টি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ডাটা এন্ট্রি করা হলো (অন্যান্য অফিসের তথ্য এন্ট্রি কার্যক্রম চলমান) এবং এপ্লিকেশনটির দ্বিতীয় ভার্সনের জন্য আবার যোগাযোগ করা হলো এপ্লিকেশনের মূল ডেভেলপার শহীদুজ্জামান বাপ্পী ভাইয়ের সাথে। তিনি বললেন যে তিনি অ্যাপসের কাজ করতে আর কোন টাকা নেবেন না। তিনিও আমাদের সাথে বনের মোষ তাড়ানোয় শামিল হলেন এবং কিছুদিনের মধ্যে এপ্লিকেশনের দ্বিতীয় রিলিজ করা হলো।
শিগগিরই এই মোবাইল এপ্লিকেশনটির তৃতীয় ভার্সন রিলিজ হবে।
সেখানে যে অপশনটি অন্তর্ভুক্ত হবে সেটি হচ্ছে এই এপ্লিকেশনের কোন নম্বর থেকে আপনার কাছে কেউ ফোন দিলে আপনার মোবাইলের স্ক্রীনে একটি এলার্ট মেসেজ দেবে যে কে আপনাকে ফোন দিয়েছে।
যেহেতু নবীন কর্মকর্তাদের উদ্যোগে এই এপ্লিকেশনটি বানানো হয়েছে। সেহেতু এই এপ্লিকেশনে অনেক ভুল ত্রুটি থাকাটা অস্বাভাবিক নয়। সেই ভুল শুধরানোর জন্য, বিভিন্নজনের কাছ থেকে বিভিন্ন পরামর্শ নেবার জন্য একটি ফেসবুক গ্রুপ খোলা হয়েছে, যার নাম “Government Officials Contact”
লিংক https://www.facebook.com/groups/governmentofficialcontacts/
সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন— তানভীর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি), পিরোজপুর সদর, পিরোজপুর। সত্যজিৎ রায় দাস, সহকারী কমিশনার (ভূমি), খুলনা বিভাগ। রায়হান আহমেদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি), ঝিনাইগাতী, শেরপুর। নাজমুল আলম নবীন, সহকারী কমিশনার (ভূমি),আমতলী, বরগুনা। আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি), মোহনপুর, রাজশাহী।শরীফুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি), শিবচর, মাদারীপুর। মাশফাকুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি), চিরিরবন্দর, দিনাজপুর। সমীর বিশ্বাস, সহকারী কমিশনার (ভূমি), দক্ষিণ সুনামগঞ্জ। জেবুন নাহার শাম্মী, সহকারী কমিশনার (ভূমি), নালিতাবাড়ী, শেরপুর।
– See more at: http://www.manobkantha.com/2016/11/17/170563.php#sthash.yH6JTVUy.dpuf



এ সংবাদ 798 জন পাঠক পড়েছেন
Social Media Sharing

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ শিরোনাম

সম্পাদকঃ মো.নাঈমুল ইসলাম
Email:naimulislam101@gmail.com
01754859801

Web- www.sylhetsangbad24.com, FB Page:Daily Amadershopno. এশিয়া ইন্টান্যাশনাল মার্কেট, জিন্দবাজার, সিলেট।
শিরোনাম :
ছাত্রলীগ নেতার জন্মদিন পালন সিলেট-৫ আসনে আওয়ামীলীগ এর মনোনয়ন সংগ্রহ করেছেন ফয়সাল আহমদ রাজ নির্বাচিত সরকারের অধীনেই নির্বাচন চাই: জি এম কাদের বাহুবলে চালকসহ নিহত ১ আহত ২ ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অবৈধ নিয়োগ বাতিল ও স্থায়ীদের নিয়োগের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় গোলাপগঞ্জে প্রবাসীর বাড়ি দখলের অভিযোগ মাদ্রাসা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে জয় হোক তারুণ্যের, জয় হোক ক্লিন ইমেজের- আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকালে ড. রফিকুল তালুকদার জনকল্যাণ ডেপলামেনট এসোসিয়েশনের অত্মপ্রকাশ সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট’র শিক্ষক-কর্মচারীদের কর্ম-বিরতী পালন রবি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভা অনুষ্ঠিত নগরীতে অটোরিকশাচালক খুনের ঘটনায় আটক ৩ হবিগঞ্জ-২ অাসনে নৌকা প্রত্যাশী মাসুম বিল্লাহ চৌধুরী স্কিলস কম্পিটিশন ২০১৮ আঞ্চলিক পর্ব: বিজয়ী সিভিল, ইলেকট্রনিক্স ও কম্পিউটার সন্ত্রাসী-মাদকসেবীদের গ্রেফতারের নির্দেশ ইসির সংলাপে বসার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে ঐক্যফ্রন্ট ছাত্রীর গায়ে কালি ছুড়ে মারা শ্রমিকদের গ্রেফতারের দাবি শিক্ষার্থীদের এবার ৯৬ ঘণ্টা ধর্মঘটের হুমকি জামায়াতের নিবন্ধন বাতিলের গেজেট এলো ৫ বছর পর পরিবহন ব্যবস্থায় জনদুর্ভোগ : অামরা নিরুপায়! আইন সম্পর্কে ধারণা নেই অবরোধকারীদের: আইনমন্ত্রী শাজাহান খান জানেন না শ্রমিক ধর্মঘটের খবর নগরে ভরসা রিকশা ,যাত্রীবিহীন বাস টার্মিনাল গোলাপগঞ্জে অজ্ঞাত ব্যক্তির বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার কলেজছাত্রীদের গায়েও কালি মাখালো শ্রমিকরা ধর্মঘট প্রত্যাহারে কাদেরের আহবানে ওসমান আলীর ‘না’ সিলেট থেকে ছাড়ছে না দূরপাল্লার বাস, বিপাকে যাত্রীরা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আতাউর রহমানকে কলেজ ছাত্রলীগের বিদায়ী সংবর্ধনা এমসি কলেজে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন’র অাত্মপ্রকাশ বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৯ ড. কামাল-মনসুরদের আচরণ ব্যাক্তিগত হতাশায় অস্তিরতা মাত্র স্বার্থপরতা ও আমাদের সমাজ ব্যবস্থা-জাকির খান ধনমাইরমাটি দারুল উলুম মাদ্রাসার পক্ষ থেকে লায়ন রাজ কে সংবর্ধনা প্রদান দেশনেত্রীর মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত এই দেশে কোন নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না: খন্দকার মুক্তাদির সুনামগঞ্জ-১ অাসনে নির্বাচনী হালচাল আওয়ামী প্রযুক্তিলীগ ৩নং দিঘীর পার পুর্ব ইউ/পি শাখার উদ্দ্যোগে নির্বাচনি আলোচনা সভা অনুষ্টিত সিলেট ৫ আসনে প্রচারনা করে যাচ্ছেন আওয়ামীলীগ এর মনোনয়ন প্রত্যাশী লায়ন রাজ সারাটা জীবন মানুষের সেবা করে যেতে চাই, লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে ও মইনুলের শাস্তির দাবিতে সিলেটে ঝাড়ু মিছিল সাবেক শিবির ক্যাডার নিজামের নিয়ন্ত্রনে সাব রেজিষ্টারী অফিসের জালিয়াত চক্র! নৌকার বিজয়ে গড়ে ওঠবে অাধুনিক সুনামগঞ্জ- ড. রফিকুল তালুকদার মানুষের দিনবদলের যাত্রা শুরু হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলন চালিয়ে যাবেন মিটার রিডাররা সমাজকে রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে শিলং তীরের মূলহোতা ফরিদদের রুখতে হবে প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমানের মৃত্যুতে সুলতান মনসুরের শোক প্রিন্সিপাল হাবিবুর রহমানের মৃত্যুতে লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজের শোক প্রকাশ দক্ষিণ সুরমায় টিকটিকি ও তীর জুয়ার মুল হোতা কাসেম দক্ষিণ সুরমার শিলং র্তীরের গডফাদার ফরিদ-দিলোয়ার সিলেট এমসি কলেজে অনুমোদন পেল বহুল প্রত্যাশিত কেমিস্ট্রি ক্লাব ২১ আগষ্টের রায়ের দিন মাঠে ছিলেন সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজ। সিলেট-৫ আসনে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা