,

তাজউদ্দীনের পদত্যাগ, এ কী রাজনীতির খেলা: মতিউর রহমান চৌধুরী

29গুজব ছিল ক’দিন থেকেই। রাজনৈতিক ময়দান থেকে সচিবালয়ে। এরপর প্রেস ক্লাবের টেবিলে। বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদকে অপসারণ করা হচ্ছে। তিনি তখন অর্থমন্ত্রী। ন’মাস মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দেয়া মানুষটির পদত্যাগ বা অপসারণের গুজব চাঞ্চল্যই সৃষ্টি করেছিল। ২৬শে অক্টোবর ১৯৭৪ সাল। যথারীতি প্রেস ক্লাবের আড্ডায়। আফতাব আহমাদ নানা যুক্তি দেখাচ্ছেন। গণকণ্ঠের সহকারী সম্পাদক আফতাব আহমাদ কথা বলতেন শব্দ করে। তবে তার কথায় যুক্তি থাকতো। পরে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক হয়েছিলেন। ক’বছর আগে আততায়ীর গুলিতে প্রাণ হারান। তার মৃত্যুর কারণ আজও অজানা। সে দিনের সকালের আড্ডায় তিনি বলছিলেন তাজউদ্দীনকে সরতেই হবে। কি কারণ? শফিকুল আজিজ মুকুল এই প্রশ্ন করতেই আফতাব আহমাদের জবাব ব্যক্তিত্বের সংঘাত। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়ে গেছে এমন কিছু উদাহরণও টানলেন। শফিকুল আজিজ মুকুলও একজন পণ্ডিত লোক ছিলেন। বাংলার বাণীর সহকারী সম্পাদক। তার বাসাটি বইয়ে বোঝাই থাকতো। দেখলে মনে হতো এ যেন এক সাজানো-গোছানো পাবলিক লাইব্রেরি। তিনি কথা বাড়ালেন না। এক পর্যায়ে শুধু বললেন, এটাই কী রাজনীতির খেলা! আড্ডা থেমে গেল। যার যার কাজে চলে গেলেন। সচিবালয় ঘুরে এলেন কয়েকজন সাংবাদিক। তারা জানালেন আজই তাজউদ্দীন সাহেব পদত্যাগ করবেন। চারদিক থেকে এ রকম খবরই আসতে লাগলো। প্রেস ক্লাব থেকে অনেকেই ছুটলেন সচিবালয়ে। তাজউদ্দীন সাহেবের দপ্তরের সামনে সাংবাদিকদের উপচেপড়া ভিড়। টান টান উত্তেজনা। গোয়েন্দারাও গিজ গিজ করছেন।
সকাল গড়িয়ে দুপুর। অপেক্ষার পালা। দুপুর ১২টার পর গুজব আরো জমাট হলো। ঠিকই বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘদিনের সহকর্মী পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন। কাগজপত্র গুছাচ্ছেন এমন খবরও এলো। ১২টা ২২ মিনিটে পদত্যাগের কথা জানালেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে। এতো রেডিও-টেলিভিশন নেই তখন। অনলাইনও নেই। এর মধ্যেও খবরটি দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়লো চারদিকে। তাজউদ্দীন সাহেব নিচে নামলেন। নিরাপত্তা কর্মীদের অযথা বাড়াবাড়ি নেই। তার জন্য বরাদ্দকৃত গাড়ি যদিও অপেক্ষা করছিল। সবাইকে অবাক করে দিয়ে তিনি সেই গাড়িতে উঠলেন না। বন্ধু আরহাম সিদ্দিকীর গাড়ি করে সচিবালয় ছাড়লেন। সচিবালয় থেকে সোজা গেলেন মিন্টো রোডে সরকারি বাসভবনে। পতাকাবিহীন গাড়ি যখন গেটে ঢুকতে যাচ্ছিলো তখন নিরাপত্তা কর্মীরা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলো। তাদের কাছে তখনও খবরটি হয়তো পৌঁছেনি। কাঁচ খুলে নিজেই বললেন গেট খুলো। ভেতরে কর্মরত নিরাপত্তা কর্মীরা এসে ভিড় জমালো। স্যার পদত্যাগ করেছেন। লাল দালানটির চেহারা মুহূর্তেই বদলে গেল। জাতীয় পতাকা নেমে গেল। নিরাপত্তা কর্মীরা বাক্স-পেটরা গোছাতে শুরু করলো। দেড়টার দিকে গিয়ে দেখি বাড়ির সামনে ছোটখাটো এক জনসভা। শত শত মানুষের ভিড়। নেতার মুখ থেকে শুনতে চায়। তাজউদ্দীন সাহেব তখন ভেতরের ঘরে। স্ত্রী জোহরা তাজউদ্দীনকে সব কিছু জানাচ্ছেন। যদিও কয়েকদিন আগে থেকেই তিনি তার পরিবারের সদস্যদের এমন ধারণাই দিচ্ছিলেন যে কোনো সময় তিনি মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিতে পারেন। পদত্যাগের এক মিনিটের মধ্যেই তাজউদ্দীন সাহেব জোহরা তাজউদ্দীনকে ফোনে খবরটি জানান। বলেন, লিলি এখন থেকে তোমাকে বেশি বেশি করে সময় দেবো। সংবাদে থাকাকালে এক সাক্ষাৎকারে জোহরা তাজউদ্দীন আমাকে বলেছিলেন পদত্যাগের পর তার মধ্যে কোনো অনুশোচনা দেখিনি।
কোনো কথা বললেন না প্রচারবিমুখ এই মানুষটি। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেন না। ফিরে এলাম এক রাশ হতাশা নিয়ে। কি এমন ঘটলো বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে। যে কারণে তাজউদ্দীনকে সরে যেতে হলো। ঘটনাপঞ্জি বিশ্লেষণ করেছেন এমন ক’জন ইতিহাসবিদের মূল্যায়ন হচ্ছে- সংঘাতটা নেতৃত্বের, ব্যক্তিত্বের। আওয়ামী লীগের ভেতরকার একটি শক্তি বরাবরই চেষ্টা করেছে দূরত্ব তৈরি করতে। তাজউদ্দীন নিজেও খুব অভিমানী ছিলেন। জাসদে যোগ দেবেন- এমন জল্পনা ছিল শুরুতেই। আসলে এটা গুজব ছিল। লাহোর ইসলামী শীর্ষ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুর যোগদানে বাধা দিয়েছিলেন। জরুরি অবস্থা জারিতে ভিন্নমত দেন। ওয়াশিংটন থেকে ফিরে মার্কিন নেতৃত্বের সমালোচনা করেন। দুর্ভিক্ষপীড়িত মানুষজনকে বাঁচানোর জন্য সর্বদলীয় ত্রাণ কমিটি গঠনের প্রস্তাব দেন। সব দল নিষিদ্ধ করে বাকশাল গঠনের উদ্যোগেরও বিরোধিতা করেন। বলেন, এ জন্য আমরা ২৪ বছর পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে লড়াই করিনি।
বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে তাজউদ্দীনের দূরত্ব তৈরিতে যে চক্রটি কাজ করেছিল তার মধ্যে খোন্দকার মোশ্‌তাক অন্যতম। অবস্থা এমনই তৈরি করা হয়েছিল, ১৭ই এপ্রিল মুজিবনগর দিবসে বঙ্গবন্ধু কোনোদিনই সেখানে যাননি। পরদিন ঢাকার সব সংবাদপত্রে প্রধান শিরোনাম হলো তাজউদ্দীন আহমদের পদত্যাগের খবর। সরকার নিয়ন্ত্রিত কয়েকটি পত্রিকা অবশ্য জাতীয় স্বার্থে তাজউদ্দীনকে পদত্যাগ করানো হলো- এ রকম শিরোনামও দিয়েছিল। টক অব দ্য কান্ট্রি হয়ে গেলেন তাজউদ্দীন। একদিন যারা তার সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন তারাও বুঝে গেলেন তাজউদ্দীন এক পতিত নক্ষত্র। রাজনীতি আসলেই নিষ্ঠুর। তাজউদ্দীনের পদত্যাগ নিয়ে হইচই যেটুকুই হলো মিজানুর রহমান চৌধুরীর পদত্যাগ পত্রিকার পাতাতেই থাকলো। একজন প্রখ্যাত নায়িকার সঙ্গে ‘অন্যরকম’ সম্পর্কের কারণে তথ্যমন্ত্রী থেকে মিজান চৌধুরীকে পদত্যাগ করতে হয়েছিল। তাজউদ্দীন সাহেবের পদত্যাগের কাছাকাছি সময়ে খ্যাতনামা সাংবাদিক আবদুল গাফ্‌ফার চৌধুরী অধুনালুপ্ত দৈনিক জনপদের প্রথম পাতায় এক সম্পাদকীয় লিখে নানা প্রশ্নের জন্ম দেন। তিনি এই পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। ‘ক্লান্তি আমায় ক্ষমা করো প্রভু’ শিনোনামে লেখেন ‘বঙ্গবন্ধু আপনাকে বেছে নিতে হবে আপনি আলেন্দে হবেন না জওহরলাল নেহেরু হবেন। বলে রাখা ভালো, চিলির আলেন্দেকে হত্যা করা হয়েছিল। তিনি সোভিয়েতের দিকে ঝুঁকে পড়েছিলেন। ইতিহাসে তার মৃত্যুর ঘটনা এভাবেই চিত্রিত হয়ে আছে।



এ সংবাদ 1122 জন পাঠক পড়েছেন
Social Media Sharing

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ শিরোনাম

সম্পাদকঃ মো.নাঈমুল ইসলাম
Email:naimulislam101@gmail.com
01754859801

Web- www.sylhetsangbad24.com, FB Page:Daily Amadershopno. এশিয়া ইন্টান্যাশনাল মার্কেট, জিন্দবাজার, সিলেট।
শিরোনাম :
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে ও মইনুলের শাস্তির দাবিতে সিলেটে ঝাড়ু মিছিল সাবেক শিবির ক্যাডার নিজামের নিয়ন্ত্রনে সাব রেজিষ্টারী অফিসের জালিয়াত চক্র! নৌকার বিজয়ে গড়ে ওঠবে অাধুনিক সুনামগঞ্জ- ড. রফিকুল তালুকদার মানুষের দিনবদলের যাত্রা শুরু হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী আন্দোলন চালিয়ে যাবেন মিটার রিডাররা সমাজকে রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে শিলং তীরের মূলহোতা ফরিদদের রুখতে হবে প্রিন্সিপাল হাবীবুর রহমানের মৃত্যুতে সুলতান মনসুরের শোক প্রিন্সিপাল হাবিবুর রহমানের মৃত্যুতে লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজের শোক প্রকাশ দক্ষিণ সুরমায় টিকটিকি ও তীর জুয়ার মুল হোতা কাসেম দক্ষিণ সুরমার শিলং র্তীরের গডফাদার ফরিদ-দিলোয়ার সিলেট এমসি কলেজে অনুমোদন পেল বহুল প্রত্যাশিত কেমিস্ট্রি ক্লাব ২১ আগষ্টের রায়ের দিন মাঠে ছিলেন সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজ। সিলেট-৫ আসনে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা বাংলাদেশের উন্নয়নে শেখ হাসিনা শ্রেষ্ঠ: লায়ন ফয়সাল আহমেদ রাজ নৌকায় ভোট দিয়ে কেউ কখনোই বঞ্চিত হবে না: লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজ নেপালের বিপক্ষে ২-০ গোলে জয় পেলো তাজিকিস্তান বুধবার প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন সরকারের উন্নয়নের চিত্র প্রচারনায়, লায়ন ফয়সাল আহমেদ রাজ ‘সমাবেশ ঘিরে বিএনপির ৪০০ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার’ সিলেটসহ ৮ জেলায় জজ ও বিচারক পদে রদবদল বিএনপির ৭ দফা দাবি অযৌক্তিক: ওবায়দুল কাদের সুষ্ঠু নির্বাচনে এরচেয়ে উত্তম ব্যবস্থা সম্ভব নয়: অর্থমন্ত্রী যাদের মিথ্যা সংবাদ ছাপানোর উদ্দেশ্য নেই, তাদের ভয়েরও কিছু নেই: জয় বঙ্গবন্ধু কাপের পর্দা উঠছে সন্ধ্যায় তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠনের নির্দেশনা চেয়ে হাই কোর্টে রিট প্রধানমন্ত্রী নিয়ে ‘ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য’, চিকিৎসককে শোকজ মোগলাবাজারে আছিয়া হত্যা: আদালতে তিন জনের স্বীকারোক্তি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনে ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার: অর্থমন্ত্রী আবুধাবিতে সাংবাদিক বুলবুলকে সিলেট বিভাগ প্রবাসী সমিতির সংবর্ধনা এখনো সন্ধান মেলেনি জকিগঞ্জের পৌর কাউন্সিলরের দেশের উদ্দেশে নিউইয়র্ক ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় চাইলেন এসকে সিনহা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ উপলক্ষে এসএমপির মতবিনিময় ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে পুলিশের বাধা দক্ষিণ সুরমায় পূর্ব শত্র“তার জের ধরে দুই কিশোরকে তুলে নিয়ে অমানবিক মারধর ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিকম্প ও সুনামিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৮৪ ছাতকে ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা গোলাপগঞ্জে সরকারী জনতা ব্যাংকের চার লাখ টাকা নিয়ে গ্রাহক লাপাত্তা গোলাপগঞ্জে সরকারী জনতা ব্যাংকের চার লাখ টাকা নিয়ে লাপাত্তা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদের জামিন নামঞ্জুর, জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের নিন্দা যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতা সাত্তারের পক্ষথেকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের মুক্তির দাবীতে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে পুলিশের ‘গায়েবী’ মামলা সুনামগঞ্জ-৩ আসনের বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী যুক্তরাজ্য বিএনপির সদ্য সাবেক কোষাধ্যক্ষ এম এ সাত্তারের সমর্থনে সভা নৌকার মনোনয়ন পেয়ে চমক দেখাতে পারেন লায়ন রাজ সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন ও মানববন্ধন পালিত সন্ত্রাসী হামলায় আহত এসপিআই শিক্ষার্থী নাঈম সাধারণ ছাত্রদের মারধর, অধ্যক্ষের নিরব ভূমিকা, শনিবার ক্লাস বর্জন ও মানববন্ধন বাসায় হামলা ও নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের বিক্ষোভ সিলেট-৫আসনে মাটে প্রচারণায় লায়ন ফয়সাল আহমদ রাজ সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় বিল সংসদে পাস