,

জনপ্রিয়তাই কাল হয়েছে খালেদা জিয়ার

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তার জনপ্রিয়তায় ক্ষমতাসনিরা সব সময়ই ঈর্শান্বিত। যে আইনের অধীনে তার বিরুদ্ধে এই মামলা হয়েছে তা ওই আইনের আওতায় পড়ে না। জনপ্রিয়তাই তার কাল হয়ে দাঁড়নোয় এই রাজনৈতিক মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামানের আদালতে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ এভাবে যুক্তি উপস্থাপন করেন।

এর আগে এদিন বেলা ১১টা ৫ মিনিটে ঢাকার বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালতে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী আদালতে হাজির হন। বেলা ১১টা ১০ মিনিটে বিচারক ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান এজলাসে ওঠার পর সাবেক স্পিকার জমিরউদ্দিন সরকার ৯ম দিনের যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন।

জমির উদ্দিন সরকার বেগম খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থণের বক্তব্য বিষয়ে যুক্তি উপস্থাপন করেন। তিনি সাক্ষীর ওপর ভিত্তি করে নয় তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত রায় দিবেন বলে আশা প্রকাশ করে বেলা ১২টা ৩৩ মিনিট যুক্তি উপস্থাপন করে শেষ করেন। এরপর আদালত বিরতি দেন। বিরতি শেষে দুপুর ১টা ১২ মিনিটের দিকে বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। দুপুর ২টা ২৪ মিনিট পর্যন্ত যুক্তি তুলে ধরেন তিনি। এরপর তা অব্যাহত থাকা অবস্থায় আগামী ১৬, ১৭ ও ১৮ জানুয়ারি পরবর্তী যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন ধার্য করা হয়।

যুক্তিতর্কে জমির উদ্দির সরকার বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার সমস্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ পর্যালোচনা করে তিনি দেখেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগই দুর্নীতি দমন কমিশন প্রমাণ করতে পারেনি। ফৌজদারি মামলায় অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ করতে না পারলে এর সুবিধা পাবেন আসামি। তিনি আদালতকে উদ্দেশ করে বলেন, বেগম খালেদা জিয়া ন্যায়বিচার চান ন্যায়বিচার করুন।

জমির উদ্দিন সরকার আদালতে বিএনপির চেয়ারপারসনের আত্মপক্ষ সমর্থন করে দেওয়া বক্তব্যের গুরুত্বপূর্ণ অংশ পড়ে শোনান। বিশেষ করে বেগম খালেদা জিয়া এতিমের টাকা চুরি করে খেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগের অন্য নেতাদের এমন বক্তব্য আদালতের কাজে হস্তক্ষেপ কি না, সে বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন তিনি। তিনি তার বক্তব্যে বারবারই আইনের শাসন, গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচারের কথা আদালতকে স্মরণ করিয়ে দেন। তিনি এক এগারোকে ‘কালো দিবস’ আখ্যা দিয়ে বলেন, ওই সময় সম্পূর্ণ রাজনৈতিক কারণে ও বেগম খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক জীবন বাধাগ্রস্থ করতে মামলা দেওয়া হয়েছে। এখন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩৬টি মামলা আছে।

যুক্তি উপস্থপনের শুরুতে মওদুদ আহমেদ বলেন, আমাদের সংবিধানে ৩৫(৩) এ আছে একজন আসামির মৌলিক অধিকার হলো পাবলিক ট্রায়াল। কিন্তু এটা পাবলিক ট্রায়াল হচ্ছে না। ক্যামেরা ট্রায়ালে মামলা চলছে। এটা সংবিধান সম্মত হচ্ছে না। সুতরাং সংবিধান লংঘন করা হয়েছে। কারণ এখানে কাউকে আসতে দেয়া হয় না। এমনকি অনেক আইনজীবীদেরও আসতে দেয়া হয় না। একানে কোনো সুযোগ-সুবিধা নেই। আইনজীবী বা পাবলিক আসার কোনো সুযোগ নেই, এসব বন্ধ। এটা ক্যামেরা ট্রায়াল। বলতে গেলে শেরে বাংলা নগরে মঈন উদ্দিন- ফখরুদ্দিন সময়ে যে ধরনের ট্রায়াল হতো এ রকমই একটা ট্রায়াল হচ্ছে। এটাকে কোনো মতেই পাবলিক ট্রায়াল বলা যায় না।

তিনি বলেন, এখানে বেগম খালেদা জিয়া আরো ১৪ টা মামলা স্থানান্তর করা হচ্ছে। এগুলো কোনো পাবলিক ট্রায়াল হবে না। সেখানে যারা অভিযুক্ত তারা নিজেদের ডিফেন্ড করার সুযোগ পাবে না। আদালতের যে আনুসঙ্গিকতা বা পরিবেশ থাকে সেটা এখানে নেই। আইনজীবীদের ১০০ ফুট দূরে দাঁড়িয়ে আর্গুমেন্ট করতে হয়। যেটা প্রধান বিচারপতির কোর্টেও হয় না। সেখানে আমরা কত কাছে থেকে আর্গুমেন্ট করি আর এখানে কত দূরে দাঁড়িয়ে আর্গুমেন্ট করতে হয়। আদালতের স্বাভাবিক পরিবেশ এখানে নেই।

প্রবীন এ আইনজীবী বলেন, এখানে আমরা একটি মাত্র কারণে এসেছি। একজন দেশ বরেণ্য নেত্রীকে রাজনৈতিক কারণে আজ আপনার (বিচারক) সামনে এসে ন্যায় বিচারের জন্য দাঁড়াতে হচ্ছে। মামলাটা শুরুতেই খারিজ করে দেয়া উচিত ছিলো। যদি রাজনৈতিক প্রভাব বা রাজনৈতিক কারণ না থাকতো তাহলে অবশ্যই প্রথমে এটা খারিজ করে দেয়া হত। কারণ এখানে কোনো সাক্ষ্য নাই, স্বাক্ষী নাই। কোনো কাগজ নাই যেখানে বেগম খালেদা জিয়া স্বাক্ষর করেছেন। তিনি এ ব্যাপারে একবারেই জড়িত ছিলেন না। শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণে তাকে এ মামলায় জড়ানো হয়েছে। কিছু ভূয়া দলিল, কাগজপত্র সৃজন করে মামলাটা দাঁড় করানো হয়েছে। যার মূল নথি পাওয়া যায়নি। সে অযুহাতে তারা নিজেরা কিছু কাগজপত্র তৈরি করেছে। কোনো মামলায় জাল-জালিয়াতি থাকলে সেই মামলা তখনই অবসান হয়ে যাবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক শক্তিকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে সেটা এই মামলার মাধ্যমে। আর সেটা করতে হলে বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে নিচিহ্ন করতে হবে। তারই অপচেষ্টা করা হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়া তিনবারের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তার জনপ্রিয়তায় ক্ষমতাসনিরা সব সময়ই ঈর্শান্বিত। যে আইনের অধীনে তার বিরুদ্ধে এই মামলা হয়েছে তা ওই আইনের আওতায় পড়ে না। জনপ্রিয়তাই তার কাল হয়ে দাঁড়নোয় এই রাজনৈতিক মামলা করা হয়েছে বলে দাবি করেন মওদুদ আহমেদ।

মামলায় বলা হয়, এতিমদের জন্য বিদেশী থেকে আসা ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে জিয়া অরফানেজ মামলাটি দায়ের করে দুদক। ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় এই মামলাটি দায়ের করা হয়।

২০০৯ সালের ৫ আগস্ট দুদক আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। মামলাটিতে ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জগঠন করে আদালত। অন্যদিকে ২০১১ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলাটি দায়ের করে দুদক। এ মামলায় ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে চার্জশিট দাখিল করে দুদক। এ মামলায় ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করা হয়।



এ সংবাদ 156 জন পাঠক পড়েছেন
Social Media Sharing

Leave a Reply

সর্বশেষ শিরোনাম

—————————————

—————————————-

———————————–
all
————————————–

সম্পাদক মন্ডলীর সদস্যঃ এম আনোয়ার হুসেন মাষ্টার
সহ-সম্পাদকঃ মো.নাঈমুল ইসলাম

Email:nurul.press05@gmail.com, Web- www.sylhetsangbad24.com, FB Page:Daily Amadershopno. Mob-01718-538045 অফিস: সহির প্লাজা(নিচ তলা) জিন্দাবাজার,সিলেট।
শিরোনাম :
মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বদরুজ্জামান সেলিম সিলেট বিমানবন্দরে বদরুজ্জামান সেলিমকে নেতাকর্মীদের সংবর্ধনা তারেক রহমানের হস্তক্ষেপ কামনা করে সিলেটে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল মেয়র পদে কামরান, আসাদ, আলোয়ার, জাকির ও আজাদের কেন্দ্রে জেলা ও মহানগর নেতৃবৃন্দকে জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট ছাত্রদলের অভিনন্দন মৌলভীবাজারে বন্যায় ৭ জনের মৃত্যু, ক্ষতিগ্রস্ত ২ লাখ নবগঠিত ছাত্রদল কমিটির নেতৃবৃন্দকে মদন মোহন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের অভিনন্দন নবগঠিত ছাত্রদল কমিটির নেতৃবৃন্দকে ১৮ ও ১৯ নং ওয়ার্ড ছাত্রদলের অভিনন্দন নবগঠিত কমিটি থেকে পদত্যাগের সংবাদ ভিত্তিহীন ও অপপ্রচার নবগঠিত ছাত্রদলের ধাওয়ায় প্রত্যাখ্যানকারীদের পালায়ন (ভিডিও) সিলেট মহানগর ছাত্রদলের কমিটি: সভাপতি সুদীপ সম্পাদক রাব্বি সিলেট জেলা ছাত্রদলের কমিটিঃ সভাপতি সুমন সম্পাদক দিনার ফ্রেন্ডস একতা যুব সমবায় সমিতি লিমিটেডের ইফতার, দোয়া মাহফিল ও সংবর্ধনা আল গণী ফাউন্ডেশন ও জিবি বার্তার ইফতার সিসিক নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হচ্ছেন পিযুষ কান্তি দে জিন্দাবাজার মুক্তিযোদ্ধা গলিতে ভয়াবহ আগুন ‘মানব সেবা ও মানব কল্যাণই ইবাদাতের শামিল’ – সাব্বির আহমদ চৌধুরী জেলা যুবদল নেতা সামছুল ইসলাম টিটু সাথে বালাগঞ্জ উপজেলা যুবদল ছাত্রদলের মতবিনিময় বসতভিটা ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর নিকট শিবগঞ্জের শফিক আহমদের আকুতি দক্ষিণ ছাতক উন্নয়ণ পরিষদ সিলেট এর ইফতার মাহফিল এমপি কয়েসের উদ্যোগে পুনঃপ্রতিষ্ঠিত তজমুল অালী সড়কের নামফলক বিয়ানীবাজার বাস শ্রমিক উপকমিটির ত্রি বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন মাহে রমদ্বানের স্বাগত জানিয়ে ছাত্রসেনা সিলেট জেলার মিছিল মাহে রমজান উপলক্ষে সুরমাপারের সামাজিক যুব সংঘের চাল বিতরণ বিয়ানীবাজারে রোটারী ক্লাবের এডালট এডুকেশন সেন্টারের উদ্বোধন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রতিদিন ৬০ শিশুর জন্ম: ইউনিসেফ লক্ষীপাশায় এলজিএসপি’র বরাদ্দ স্কুল ব্যাগ ও ঔষধ বিতরণ জামিন হলেও আরো দুই মামলায় গ্রেপ্তার বেগম জিয়া ভালবাসা ও ঘৃণার লড়াই !!! ইমামের মাথায় মল-মূত্র ঢাললো আওয়ামীলীগ নেতা: গ্রেফতার ১ (ভিডিও) শেখঘাট থেকে বৃদ্ধ নিখোঁজ আখালিয়া স্কুল থেকে ছাত্রী নিখোঁজ খালেদা জিয়া ও মাহবুবুল হকের মুক্তির দাবিতে সিলেট ছাত্রদলের বিক্ষোভ সাংবাদিকদের সাথে বদরুজ্জামান সেলিমে’র মতবিনিময় সিলেটে বিএনপি’র রেষ্টুরেন্টে সেচ্ছাসেবকলীগের ভাংচুর জামালগঞ্জে জুয়েলের হত্যাকারীদের ফাসিঁর দাবীতে মানববন্ধন সিলেটে বাড়ছে হিমায়িত খাদ্যের বাজার: চেইন শপে এগিয়ে লামিছা-রেটাইলে ঝাটপট বিশ্ব মা দিবস আজ জিন্দাবাজার ভোজন বাড়ি রেস্টুরেন্টে হামলা, ভাংচুর রাজনীতির ৩৪ বছরে চিত্র প্রদর্শনীঃ আত্মজীবনী প্রকাশে বিএনপি রবি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির মাসিক সভা ও সংবর্ধনা চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ৪ জুন পর্যন্ত খালেদার জামিন ১৫ পদে ৩৪ প্রার্থী : প্রতিদ্বদ্ধিতায় নবীণ-প্রবীণরা নবনির্বাচিত ছাত্রলীগের ওয়ার্ড কমিটির আনন্দ মহড়া আমি ছিনতাই করলে তোর অসুবিধা কী ? ‘স্যার আপনি কি নামাজ পড়েন’ প্রশ্ন করে গ্রেপ্তার: যুগান্তর থেকে নিউজ গায়েব সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে নারীসহ পাঁচজনের মৃত্যু লায়েকের মিছিল দেয়া স্তব্দ কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে বুধবার মানববন্ধন খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি মুলতবি